1. site@64bangla.tv : admin64bangla : হেড অব নিউজ
  2. ownreporter1@64bangla.tv : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
ঝিনাইগাতীতে বসবাসের অনুপযোগী আবাসনের ঘরগুলো, বাসিন্দাদের দুর্ভোগ - ৬৪ বাংলা টিভি
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৫০ অপরাহ্ন
সর্বশেষ:
রোহিঙ্গাদের সেনাবাহিনীতে নিচ্ছে মিয়ানমার বিনামূল্যে শিশুর হার্টে প্রয়োজনীয় ডিভাইস স্থাপনের উদ্যোগ ডিএনসি নওগাঁ, গাইবান্ধা, খুলনা ও নোয়াখালীতে বিপুল পরিমান মাদক উদ্ধার ‍। বুধবার সকালে উপকূল অতিক্রম করবে ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ পুলিশ মোতায়েন রাখতে চায় ইসি ভোটের ১৫ দিন পরেও পরিচালক-প্রযোজক শফি বিক্রমপুরী আজ মারা গেছেন ফিলিস্তিন, জর্ডান এবং মিশরের সঙ্গে বৈঠক বাতিল বাইডেনের বিএনপির গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে বিএনপির ২০ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার নজীর গড়ল বাংলাদেশ ফুটবল দল ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে পর্যাপ্ত ব্যবস্থাপনা গ্রহন করা হচ্ছে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঝিনাইগাতীতে বসবাসের অনুপযোগী আবাসনের ঘরগুলো, বাসিন্দাদের দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময়ঃ শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৫২২ বার পড়া হয়েছে
64bangla tv
64bangla tv
শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে আবাসনের ঘরগুলো বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পরেছে। ফলে এ আবাসনের বসবাস কারী অর্ধশত পরিবারের লোকদের মানবেতর জীবনযাপনের পাশাপাশি চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। জানা গেছে, ২০০৪ সালে উপজেলার নলকুড়া ইউনিয়নের ভারুয়া গ্রামে সাড়ে ৫ একর সরকারি খাস জমির উপর আবাসন প্রকল্পটি নির্মান করা হয়। সেনাবাহীনির মাধ্যমে নির্মিত ১০টি সেট ঘরের প্রতিটি ঘরে নির্মান করা হয় ১০টি করে কক্ষ। আর প্রতিটি সেট ঘরের ১০টি করে কক্ষের ১০ সেট ঘরের ১শটি কক্ষে ১শ জন ছিন্নমুল পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়। আবাসনের বাসিন্দা আশরাফ আলী ও বুদু মিয়া জানান, আবাসনে ১শ পরিবারকে মাথাগুজার ঠাই করে দেয়া হলেও তাদের জন্য করা হয়নি কর্মসংস্হানের ব্যবস্হা। ফলে জীবিকার তাগিদে ঘর ফেলে রেখে ৬০টি পরিবার পারি জমিয়েছে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্হানে। এতে ফাঁকা পরে আছে ওই ৬০টি কক্ষ। অপর দিকে ৪০ পরিবারের নারি পুরুষ ও শিশুসহ প্রায় ২শ লোক আবাসনে বসবাস করে আসলেও তাদের দুঃখ্য কষ্টের যেন শেষ নেই। বাসিন্দাদের সবাই শ্রমজীবি। একদিন কাজে না গেলে সেদিন ঘরে চুলা জ্বলে না। সেদিন তাদের থাকতে হয় অনাহারে অর্ধাহারে। ঘরগুলো ভেঙ্গে বসবাসের অনুপযুগি হয়ে পরেছে। বৃষ্টি এলে সেদিন সকলেই রাতের ঘুম হারাম।সেদিন বসে থেকেই রাত কাটাতে হয় তাদের। আবাসনের বাসিন্দা অজুফা বেওয়া জানান, আবাসনের নলকূপগুলো অকেজো হয়ে পরে আছে। ফলে বিশুদ্ধ খাবার পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। আবাসনের সভাপতি মো,গুডু মিয়া বলেন, সংস্কারের অভাবে ঘরগুলো বসবাসের অনুপযুগি। তিনি বলেন, ঘরগুলো সংস্কারের জন্য প্রশাসনের কাছে বহুবার আবেদন নিবেদন করা হলেও কোন কাজে আসেনি।

দয়া করে খবরটি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© ৬৪বাংলা.টিভি, ২০২২ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed By Madina IT