1. [email protected] : হেড অব নিউজ : হেড অব নিউজ
  2. [email protected] : নিজস্ব প্রতিবেদক : নিজস্ব প্রতিবেদক
একজন তরুন উদ্যোক্তার গল্প - যা কখনও প্রকাশ পায়নি - ৬৪ বাংলা টিভি
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৫২ অপরাহ্ন
সর্বশেষ:
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ৯৮০ জন আগামীকাল আরও ২৫ লাখ ডোজ ফাইজারের ভ্যাকসিন আসছে দেশে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের সমালোচনা করে বিএনপি একধাপ নিচে নেমে গেছে :ওবায়দুল কাদের আবারো ১২ ঘন্টার ব্যবধানে ৯০ লাখ টাকার আইস ও সাড়ে ২১ কেজি গাঁজাসহ ফেন্সিডিলল উদ্ধার নারায়ণগঞ্জে শ্রমিকরা তিন মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ২৪ জন ডিএনসির অভিযানে পিস্তল, ম্যাগাজিন, তাজা গুলিসহ বিপুল পরিমান গাঁজা, হেরোইন, ফেন্সিডিল ও ইয়াবা উদ্ধার ২২ দিন সারাদেশে ইলিশ ধরা বন্ধ থাকবে: মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু ২৬ জন

একজন তরুন উদ্যোক্তার গল্প – যা কখনও প্রকাশ পায়নি

ইয়াসিন সরকার
  • আপডেট সময়ঃ মঙ্গলবার, ২৫ আগস্ট, ২০২০
  • ২৬৪ বার পড়া হয়েছে

৬৪ বাংলা টিভির সিনিয়র রির্পোটার ইয়াসিন সরকার করোনার মধ্যে দেশীয় উদ্যোক্তাদের উপর প্রতিবেদন তৈরি করার লক্ষ্যে প্রায় ৬ মাস যাবৎ কাজ করে যাচ্ছেন। ইতি মধ্যে তিনি প্রায় ১০ জনের মতো উদ্যোক্তার সাথে কথা বলেন এবং তাদের উদ্যোক্তা হওয়ার জানা ও অজানা কথাগুলো নিয়ে বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন তৈরি করেন।

আজ প্রতিবেদন এর প্রথম পর্ব তুলে ধরা হলোঃ আমাদের আজকের অতিথি মোহাম্মদ আবু ফাহাদ মবিন, প্রতিষ্ঠাতা মদিনা আইটি

ইয়াসিন সরকারঃ আপনিতো মদিনা আইটি নামক একটি প্রতিষ্ঠান চালাচ্ছেন। আমার প্রথম প্রশ্ন হলো আপনি কিভাবে ব্যবসা বা উদ্যোক্তা হলেন। উদ্যোক্তা হওয়ার পিছনে কেউ কি কোন ভূমিকা রেখেছেন?

মোহাম্মদ আবু ফাহাদ মবিনঃ প্রথমেই শুরু করছি মহান আল্লাহ তায়ালার নামে। যিনি ব্যবসাকে করেছেন হালাল এবং সুদকে করেছেন হারাম। আমি ছোট কাল থেকেই স্বপ্ন দেখতাম বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর গর্বিত একজন অফিসার হওয়ার এবং ২য় পছন্দ হিসেবে রেখেছিলাম বাংলাদেশ জাতীয় দলের একজন গর্বিত ক্রিকেট খেলোয়ার হওয়ার। কিন্তু দুটি স্থানেই আমি ছিলাম ব্যর্থ্য। “জীবনে সফল হতে চাইলে দু’টি জিনিস প্রয়োজন: জেদ আর আত্মবিশ্বাস” – মার্ক টোয়েন এর উক্তিটি আমার খুব ভাল লাগে।

সেই থেকেই আস্তে আস্তে স্বপ্ন দেখতে শুরু করি এবং সেই স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করার লক্ষ্য নিয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনা শুরু করি। “একটি লক্ষ্য ঠিক করো। সেই লক্ষ্যকে নিজের জীবনের অংশ্ বানিয়ে ফেলো। চিন্তা করো, স্বপ্ন দেখো। তোমার মস্তিষ্ক, পেশী, রক্তনালী – পুরো শরীরে সেই লক্ষ্যকে ছড়িয়ে দাও, আর বাকি সবকিছু ভুলে যাও। এটাই সাফল্যের পথ।” – স্বামী বিবেকানন্দ।

আমার প্রতিষ্ঠিত কোম্পানীটির নাম মদিনা আইটি মদিনা আইটি। এটি ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠা করি। ২০১৯ সালের দিকে এমআইটি ফ্যাশন নাম আরেকটি প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত করি। যদিও এর কার্যক্রম এখনও শুরু করা সম্ভব হয়নি। তবে, ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে এটির কার্যক্রম শুরু হবে ইনশাআল্লাহ। ইনশাআল্লাহ ২০২০ সালের আগস্টের ৩০ তারিখ আরেকটি প্রতিষ্ঠান দেশী হাট বাজার উদ্বোধন করতে যাচ্ছি।

স্বামী বিবেকানন্দের উক্তিটিকে নিজের জীবনে ধারন করতে চেষ্টা করি। সেই উক্তিটিকে পুঁজি করে ২০১২ সালে নানান বাধা উপেক্ষা করে নেমে পরি ব্যবসার জগতে।

ইয়াসিন সরকারঃ আপনি মদিনা আইটি তে কোন কোন সেবা এবং প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করছেন? এবং ব্যবসা করতে গিয়ে কখনও কি বাঁধার সম্মুখিন হয়েছিলেন বা হয়েছেন?

মোহাম্মদ আবু ফাহাদ মবিনঃ আমার ব্যবসাটি ধরন হলো আইটি সম্পকৃত সকল ধরনের ব্যবসা এবং সাথে আছে কম্পিউটার প্রশিক্ষন। আমি ব্যবসাটি শুরু করি ২০১২ সালে এবং ব্যবসার প্রথম দিকে ডোমেইন, হোস্টিং, ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট থাকলেও পরবর্তিতে গ্রাফিক্স ডিজাইন, কম্পিউটার ট্রেনিং, এইচএসসি কোচিং অন্তভূক্ত করি। এভাবে ব্যবসার প্রসার ঘটানোর লক্ষ্য নিয়ে এগুতো থাকি। গ্রাফিক্স ডিজাইনে ভাল অংকের প্রফিট আসতে শুরু করে। কারন, বাইরের দেশ থেকে সরাসরি ক্লাইড থেকে কাজগুলো পেতাম। ক্লিপিং পাথ, মাস্কিং, রিটাচিং সহ আরোও বিভিন্ন গ্রাফিক্সের কাজ করতাম। আমার অধীনে প্রায় ১৪ জনের একটি টিম কাজ করতো ২টি সিফটে। কিন্তু ভাগ্যের চাকা ঘোরা বন্ধ করে দেয় কিছু দুর্ঘটনার কারনে। এই বিভাগটিতে হটাৎ লস হতে শুরু করে। ১৪ জনের বেতন দেওয়া আমার পক্ষে অসম্ভব হয়ে পরে। তাই বাধ্য হয়ে গ্রাফিক্স বিভাগটি বন্ধ করে দেই। একটি বিভাগকে দাড় করানোর পর ওই বিভাগটি ভেঙ্গে পরলে একজন উদ্যোক্তার মনের অবস্থা কেমন হতে পারে একমাত্র সে’ই জানে।

দুর্ঘটনার প্রভাব আস্তে আস্তে সবগুলো বিভাগে পরতে থাকে এবং ঐ বিভাগগুলোতেও লস হতে শুরু করে। ২০১৫ সালের দিকে ব্যবসার লস চূড়ান্ত পর্যায়ে এসে দাঁড়ায়। কোম্পানীটি আর টিকিয়ে রাখা হয়তো সম্ভব নয়। ২০১৫ সালে কোম্পানীটি পুরোপুরি বন্ধ করে দেই। তখন আমার লসের পরিমান ………………….. (তিনি উল্লেখ করতে চাননি) টাকা। এখানে আপনি এবং অনেকেই প্রশ্ন উঠাতে পারেন। কেন প্রতিষ্ঠিত একটি বিভাগ এবং সম্পূর্ন একটি কোম্পানী হটাৎ লসের সম্মুখীন হলো। (তিনি উল্লেখ করতে চাননি)।

ইয়াসিন সরকারঃ আপনি লস করে কোম্পানীটি বন্ধ করে দিলেন। পরবর্তিতে কেন আবার প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানীটি চালু করার আপনার ইচ্ছা হলো?

মোহাম্মদ আবু ফাহাদ মবিনঃ আমি মনে করি উদ্যোক্তাদের হার বলতে কোন কিছু নেই। উদ্যোক্তাদের হেরে গেলে চলবে না। “ব্যর্থতার ছাই থেকে সাফল্যের প্রাসাদ গড়ো। হতাশা আর ব্যর্থতা হলো সাফল্যের প্রাসাদের দুই মূল ভিত্তি” – ডেল কার্নেগী। ২০১৬ সালের দিকে পুনরায় কোম্পানীটিকে গড়ে তোলার চেষ্টা করি এবং ঐ বছরই কোম্পানীটির পুনরায় জন্ম হয়।

“সাফল্য অর্জন করা আর সফল হওয়া এক নয়। সুবিধা পেলে অনেকেই সফল হতে পারে। অনেককে জোর করে সফল বানানো হয়। কিন্তু যে নিজের চেষ্টা আর পরিশ্রম দিয়ে সফল হয় – সেই প্রকৃত সাফল্য অর্জন করে”। এই উক্তিটির মাঝে আমি আমাকে খুঁজে পাই। আমি কারোও করুনায় সফল হতে চাই না। আমি নিজের মেধা এবং চেষ্টার মাধ্যমেই নিজের লক্ষ্যে পৌছাতে চাই এবং সেই লক্ষ্য নিয়েই এগুচ্ছি এবং স্বপ্ন দেখছি। “একজন মানুষ এখন কতটা উপরে আছে, তা দিয়ে আমি তার সাফল্য মাপি না। একদম নিচে পড়ে যাওয়ার পর সে নিজেকে কতটা ওপরে তুলতে পারে – সেটাই আসল কথা।” উক্তিটি করেছেন, জর্জ এস, প্যাটন।

এভাবে আস্তে আস্তে আমার পুনরায় চলতে শুরু করা। আলহামদুলিল্লাহ বর্তমানে এই কোম্পানীর মালিক আমি একা। আমি ডোমেইন নেইম রেজিঃ, ওয়েব হোস্টিং – (রিসেলার, মাস্টার রিসেলার) ভিপিএস, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, ওয়েব মেইনটেনেন্স, এসইও, অনলাইন মার্কেটিং, এসএমএস, সিসিটিভি ক্যামেরা, প্রোডাক্টিভিটি সফটওয়্যার – (উইন্ডোজ ১০ প্রো/হোম, অফিস অ্যাপ্লিকেশন, এডগার্ড, ইন্টারনেট ডাউনলোড ম্যানেজার, বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টিভাইরাস, সাবস্ক্রিপশন), কম্পিউটার ট্রেনিং সহ অন্যান্য সেবা ও প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করছি।

ইয়াসিন সরকারঃ বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষই ফেইসবুক সহ অন্যান্য সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করে তাদের ব্যবসার প্রচার চালাচ্ছে। আমাকে কি এমন একটি মাধ্যম বা নির্দিষ্ট প্লাটফর্মের কথা বলবেন যারা আপনাকে আপনার ব্যবসার প্রসারের জন্য যথেষ্ট সাহায্য করছে বলে আপনি মনে করেন?

মোহাম্মদ আবু ফাহাদ মবিনঃ তরুন উদ্যোক্তা এটি একটি ফেইসবুক গ্রুপের নাম। গ্রুপটি আমার ব্যবসার জন্য ২০২০ সালে একটি আর্শীবাদ হিসেবে আসে। এই গ্রুপে আমি অনেক আগে থেকেই ছিলাম। কিন্তু গ্রুপে তেমন একটা অ্যাকটিভ ছিলাম না। এডমিন মাসুদ ভাই, রুবেল ভাই, মডারেটর রতন ভাই সহ আরোও যারা আছেন। গ্রুপটিকে নতুন করে পুনরায় প্রাণ দেওয়ার চেষ্টা করেন।

“সাফল্য একটি বিজ্ঞান। সঠিক উপাদান মেশালে তুমি সঠিক ফলাফল পাবে” – অস্কার ওয়াইল্ড। উনারা সেই কাজটিই করা শুরু করলেন আমাদের জন্য। কারন একটি প্রতিষ্ঠানের জন্য এর প্রচার বা বিজ্ঞাপনের কোন বিকল্প নেই। যা এডমিনরা বিনা অর্থে তা করিয়ে দেখাচ্ছেন। গত ১মাসের মধ্যে গ্রুপের সদস্য নতুন যোগ হয়েছে প্রায় ৫ হাজারের উপরে। অ্যাক্টিভিটিও বেড়েছে কয়েকগুণ।

করোনা মহামারীতে দেশে-বিদেশে যখন বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হবার পথে তখন বাংলাদেশে উদ্যোক্তাদের মাঝে আশার আলো ছড়িয়ে দিচ্ছেন “তরুণ উদ্যোক্তা” গ্রুপটি। ফলে এটি শুধুমাত্র শহরের স্মার্ট উদ্যোক্তাদের নয় বরং প্রান্তিক পর্যায়ের ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদেরকেও আজ নিজেদের স্বপ্ন বুনতে সহযোগীতা করছে। এই গ্রুপটি যে শুধুমাত্র প্রতিষ্ঠিত উদ্যোক্তাদের নিয়েই কাজ করছে তা নয়, পাশাপাশি অনেক ঝড়ে পড়া হতাশাগ্রস্ত উদ্যোক্তাকেও নতুন করে স্বপ্ন দেখাতে শুরু করেছে।

“তুমি যেখান থেকেই আসো না কেন, স্বপ্ন দেখার ও তা সফল করার অধিকার তোমার আছে” – লুপিটা আমোনদি। উদ্যোক্তা গ্রুপটি ১৪ই আগস্ট থেকে একটি ভিন্ন ধর্মী যা আগে কখনও কেউ করেনি। “পজিটিভ ক্যাম্পেইন – ২০২০” নামে একটি ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করে। এর মাধ্যমে গ্রুপে যারা সবচেয়ে বেশি কর্মঠ ও যারা বেশি অ্যাকটিভ আছেন এবং নিজ ব্যবসাকে প্রসারে যারা আগ্রহী তাদেরকে প্রতি সপ্তাহে সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিদিন ১২ ঘন্টা করে তাদের নিজের কোম্পানী/প্রতিষ্ঠান/দোকানের প্রমোশনের সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। এডমিন, মডারেটর নিজ নিজ আইডি থেকে প্রোডাক্টগুলোকে পোস্ট করছেন এবং গ্রুপের কভারে তাদের ছবিগুলোকে রেখে দেওয়া হচ্ছে এই ১২ ঘন্টা ব্যাপী। যা আজ পর্যন্ত বিনা অর্থে কেউ আগে করে নি। উদ্যোক্তা গ্রুপটি কাজ করছে উদ্যোক্তাদের কল্যানে। আমি এই গ্রুপের সকল এডমিন, মডারেটর ও মেম্বারদের মঙ্গল কামনা করছি।

ইয়াসিন সরকারঃ আপনার কাছে আমার শেষ প্রশ্ন। আপনি উদ্যোক্ত হিসেবে নতুনদের জন্য কিছু কি বলবেন?

মোহাম্মদ আবু ফাহাদ মবিনঃ মানুষ স্বপ্নকে বাঁচিয়ে রাখে না; স্বপ্নই মানুষকে বাঁচিয়ে রাখে। মানুষ মাত্রই স্বপ্ন আছে, উচ্চাকাঙ্ক্ষা আছে; ব্যর্থতা আছে, হতাশা আছে।

গুণীজনরা বলে থাকেন যে, মানুষ তাঁর স্বপ্নের সমান বড়। যাঁর স্বপ্ন যত বড় হয়, মানুষ হিসেবে সে তত বড় হয়। একবিংশ শতাব্দীর একদল উদ্যমী স্বপ্নবাজ তরুণ-তরুণী ইতঃমধ্যে প্রমাণ করেছে যে, মানুষ তাঁর স্বপ্নের সমান বড় নয়; ইচ্ছে করলে একজন মানুষ তাঁর স্বপ্নকে ছাড়িয়ে যেতে পারে অর্থাৎ স্বপ্নের চাইতেও বড় হতে পারে। স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিতে হবে। এজন্য প্রয়োজন কঠোর সাধনা আর দৃঢ় প্রত্যয় ও মনোবল। আমাদের মনে রাখতে হবে, ব্যর্থতা হলো কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যপানে পৌঁছানোর সিঁড়ি মাত্র। ব্যর্থতা ছাড়া সফলতা আসেনা, কালেভদ্রে আসলেও তা কখনো টেকসই হয় না।

দয়া করে খবরটি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© ৬৪বাংলা.টিভি, ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed By Madina-it.com